May 26, 2024, 5:15 pm
শিরোনামঃ
উপকূলে ৮-১২ ফুট জলোচ্ছ্বাস, পাহাড়ে হতে পারে ভূমিধস সব মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি বাতিল ডিআরইউ সদস্য সন্তানদের সাঁতার প্রশিক্ষণ কার্যক্রম-২০২৪ শুরু মাত্র ৫০০০ টাকার বিনিময়ে এমপি আনারের দেহ ৮০ টুকরো করা হয়, কসাই জিহাদের স্বীকারোক্তি দেশে ফিরে থলের বিড়াল বের করে দেব: নিপুণ বিনোদন প্রতিবেদক কুড়িগ্রামে অসহায় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী নুর নবী পরিবার নিয়ে চরম দুর্ভোগে দিনাতিপাত করছে ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় মন্ত্রণালয়ের সব প্রস্তুতি রয়েছে – দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী শাহজাদপুরে সাংবাদিকের ওপর হামলা, থানায় অভিযোগ দায়ের ডিএমপি সদস্যদের অগ্নিনির্বাপণ বিষয়ক প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত এমপি আনারকে হত্যার পর হাড় ও মাংস আলাদা করে হলুদ মেশানো হয়’
নোটিশঃ
আপনার আশেপাশের ঘটে যাওয়া খবর এবং আপনার ব্যবসার বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য যোগাযোগ করুন মানবাধিকার খবরে।

অসদাচরণ করায় রাজীবপুর সদর ইউপি চেয়ারম্যানকে ধাওয়া

Reporter Name

সুলতানা রাজিয়া সান্ধ্য কবিঃসিনিয়র রিপোর্টার

কুড়িগ্রামের রাজীবপুর উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধা ও উপজেলা আওয়ামিলীগের সভাপতি,সাধারণ সম্পাদক, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, সাংগঠনিক সম্পাদসহ আওয়ামীলীগের অঙ্গসংগঠনের নেতা কর্মীর সাথে অসদাচরণ করায় রাজীবপুর সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবদলের সদস্য সচিব মিরন মোহাম্মদ ইলিয়াসকে ধাওয়া দিয়েছে সাধারণ মানুষ।

গতকাল (৬ অক্টোবর) দুপুরে কুড়িগ্রাম জেলা পরিষদ নির্বাচনে সদস্য প্রার্থী সোহেল সরকারেরর পক্ষে রাজীবপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদে ভোট চাইতে যান রাজীবপুর উপজেলা আওয়ামিলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই সরকার, সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির ছক্কু, উপজেলা চেয়ারম্যান আকবর হোসেন হিরো, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আজিম উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম কিবরিয়াসহ আওয়ামীলীগের অঙ্গসংগঠনের নেতারা কর্মীরা।

ইউনিয়ন পরিষদে তাদেরকে ভোট চাইতে নিষেধ করে এবং অসম্মান করে রাজীবপুর সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিরন। একপর্যায়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই সরকারের সাথে অসদাচরণ করলে সাথে থাকা নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষ চেয়ারম্যানের ওপর চড়াও হয়ে একপর্যায়ে তাকে ধাওয়া করেন।

এই খবর মুহুর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে পুরো উপজেলায়। ওই চেয়ারম্যান উপজেলার সদর ইউনিয়নের মিয়া পাড়া এলাকায় আওয়ামীলীগের সাবেক সহসভাপতি হারুন অর রশীদ আলম মিয়ার বাড়ীতে বিয়ের দাওয়াতে গেলে ওখানেও আওয়ামীলীগের কিছু সংখ্যক নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষ তাকে লাঠিসোঁটা নিয়ে আবারও ধাওয়া করে তাড়িয়ে দেয়।

এবিষয়ে উপজেলা আওয়ামিলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই সরকার বলেন, “আমরা কুড়িগ্রাম জেলা পরিষদ নির্বাচনের সদস্য পদপ্রার্থী সোহেলের জন্য ইউনিয়ন পরিষদে ভোট চাইতে গেলে আমাকে এবং আমার সাথে থাকা নেতাকর্মীদের সাথে অসদাচরণ করে রাজীবপুর সদর ইউপি চেয়ারম্যান মিরন মোহাম্মদ ইলিয়াস। এতে সাধারণ মানুষ ক্ষিপ্ত হয়ে চেয়ারম্যানকে ধাওয়া করে।”

তবে রাজীবপুর সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবদলের সদস্য সচিব মিরন মোহাম্মদ ইলিয়াসের সাথে বার বার মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Our Like Page