June 13, 2024, 1:35 pm
শিরোনামঃ
পুলিশ কমিশনারের সাথে ডিএমপির বিভিন্ন বিভাগের প্রধানদের এপিএ স্বাক্ষর এমপি আনার হত্যাকাণ্ড : ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিন্টু গ্রেফতার প্রধানমন্ত্রীর উপহার সারাদেশে ১৮৫৬৬ টি ভূমিহীন – গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ হস্তান্তর নান্দাইলে আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের গৃহ নির্মানে কোটি টাকার অনিয়মের অভিযোগ ময়মনসিংহ ডিবি কর্তৃক ৪টি আগ্নেয়াস্ত্রসহ দেশীয় ধারালো অস্ত্র উদ্ধার সেনা প্রধান হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান রাজারহাটে দেশের কন্ঠ পত্রিকার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত রাস্তা দখলমুক্তে হকার উচ্ছেদকরনে মতিঝিল ট্রাফিকের জোরালো অভিযানঃ জেলা গোয়েন্দা শাখা ময়মনসিংহ সদস্যদের বিভিন্ন পারফরমে ন্সে পুরস্কার প্রদান ঈদ-উল-আযহা উদযাপন ও যানজট নিরসনকল্পে পরিবহণ মালিক,পেট্রোল পাম্প মালিকদের সাথে মতবিনিময় সভা
নোটিশঃ
আপনার আশেপাশের ঘটে যাওয়া খবর এবং আপনার ব্যবসার বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য যোগাযোগ করুন মানবাধিকার খবরে।

মাত্রাতিরিক্তি শাসন নয় পরিমিত শাসন করতে অভিভাবকদের প্রতি আহবান: শফিকুল ইসলাম

Reporter Name

নিজস্ব প্রতিবেদন 

জন্মের পর থেকে
সন্তান সন্ততিদেরকে লালন পালন করাই প্রতিটি অভিভাবকদের মূখ্য দায়িত্ব ও কর্তব্য। হায়াতের দুনিয়ায় প্রতিটি বাবা মায়ের কাছে জীবন যুদ্ধের সবচেয়ে বড় কঠিন ধাপ হলো সন্তান সন্ততিদেরকে মানুষের মতো মানুষ কর। তাই উচিত সন্তানদের সব সময় চোখে চোখে রাখে। কোনটা ভালো কোনটা খারাপ সেটা নিয়ে সদুপদেশ দেয়া। বাবা মায়ের সারাক্ষন বকাঝকা করতে গিয়ে প্রায় সময়ই একটা চরম ভুল করে তাদের অতিরিক্ত শাসনটা করে ফেলি।

আর এই শাসনই একটা সময় কাল হয়ে দাড়ায়। সন্তানকে আস্তে আস্তে দূরে সরিয়ে দেয় বাবা মায়ের কাছ থেকে। বেশ দূরত্ব সৃষ্টি হয়, এই মধুর সম্পর্কের মধ্যে। যার জন্য সন্তানরা নিজেকে ঠিক মতো তুলে ধরতে পারে না। অভিভাবকদের দায়িত্ব হীনতায় তারা কিছু না কিছু গোপন করে থাকে, পরবর্তীতে অভিভাবকদের অজান্তেই ছেলে মেয়ে বড় ধরনের ভুল করে বসে যা কখনো শোধরানোর উপায় থাকে না। সব সময় তারা দুশ্চিন্তায় ভোগে একাকিত্বে।
আমি সবিনয়ে অনুরোধ করছি প্রিয় অভিভাবকগণ,আপনারা ভুলে ও কখনো সন্তানদের কে অতিরিক্ত শাসন করবেন না। প্রয়োজনে তাকে একবারের জায়গায় দশবার বোঝান। তার সাথে বন্ধুত্ব পূর্ন আচারন করুন। কারণ আপনাদের থেকে আপন আর কেউ নেই তার জীবনে।

মনে রাখবেন যুগটা পাল্টে গেছে আগের যুগের কথা তাদের কাছে কাল্পনিক গল্পের মতো ভৌতিক মনে কর। তারা এসময়ের উন্নত সভ্যতার প্রজন্ম যাদের হাতের মুঠোয় পুরো পৃথিবী। তাতে আবার যৌবন কালের রাগটা একটু বেশি, সেটা আপনিও পার করে এসেছেন। তাই আপনি ভালো ভাবেই বোঝেন। আপনার ছেলে বা মেয়ে যখন রেগে যায় তখন আপনি না রেগে গিয়ে তাকে বোঝার চেষ্টা করুন। দেখবেন অল্পতেই রাগ থেমে যাবে।

তাই অভিভাবকদের প্রতি সবিনয়ে বলছি, এখনকার যুগের ছেলে মেয়েদের কে শাসন করবেন তবে সেটা পরিমিত শাসন। অপরিমিত অপশাসনে
ঘটতে পারে অনাকাঙ্খিত কিছু দুর্ঘটনা। কারন মানব জীবনে
৪ টি ধাপ পরিলক্ষিত হয়
তা হলো শৈশব, কৈশোর,যৌবন, বৃদ্ধ।
যৌবন কালে যুবক যুবতীরা উদ্ভট, উচ্ছৃঙ্খল ,অস্থির, ভুল সিদ্ধান্তের সম্মুখীন হতে পারে
সেজন্য প্রিয় অভিভাবকদের প্রতি আমার উদ্ধাত বিনীত আহবান জানান দিচ্ছি যে

আসুন আমরা সচেতন অভিভাবক হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলি। ছেলে মেয়েদের মানুষের মতো মানুষ গড়ার লক্ষ্যে তাদের প্রতি বেশি বেশি যত্নশীল হই বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুলি।
শ্রেষ্ঠ জীব মানুষ হয়ে মানুষের প্রতি সম্প্রীতি বৃদ্ধি করি তবে পেতে পারি একটি আলোকিত কাংখিত আগামীর প্রত্যাশিত সমাজ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Our Like Page