March 3, 2024, 4:56 pm
শিরোনামঃ
মাদক কারবারী ও সন্ত্রাসী,কোন অপরাধীকেই ছাড় দেওয়া হবে না- ওসি মাইন উদ্দিন গণপূর্তের দুর্নীতির মাষ্টার তিনি শাস্তি পাওয়ার বদলে মিলেছে প্রাইজ পোষ্টিং ওয়াসার পিপিআই প্রকল্প লুটপাটের মুলহোতা হাসিবুল হাসান নির্দোষ দাবি করেছেন লক্ষ্মীপুরের মাও লুৎফর রহমান আর নেই জেলের ভেসে উঠলো দিনমজুরের জামাল শিকারীর লাশ অভিনব কায়দায় প্রতারণার মাধ্যমে জমি লিখে নিলেন দেলোয়ার হোসেন ও কফিল উদ্দিন নামের দুই শিক্ষক বীর মু‌ক্তি‌যোদ্ধা অজিত রঞ্জন বড়ুয়া কে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক রাষ্ট্রীয়ভা‌বে গার্ড অব অনার দেওয়া হয় ৭ মাসে রেমিট্যান্স এসেছে এক লাখ ৪১ হাজার ৯০০ কোটি টাকা – সংসদে অর্থমন্ত্রী ডিএমপির অভিযানে মাদকসহ গ্রেফতার ৬৪ মাদকসহ আসামী ছিনিয়ে নেয়া সেই যুবলীগ নেতা র‍্যাব-৩ হাতে গ্রেফতার
নোটিশঃ
আপনার আশেপাশের ঘটে যাওয়া খবর এবং আপনার ব্যবসার বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য যোগাযোগ করুন মানবাধিকার খবরে।

মেহেন্দিগঞ্জে ধর্ষিতার জরিমানার টাকায় আ,লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী শাম্মীর জনসভার ভূড়িভোজ ও পুলিশ খরচ

Reporter Name

নিজস্ব প্রতিবেদক।।বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার শ্রীপুর ইউনিয়নের ইলিশা-কোড়ালিয়ায় গৃহবধুকে ধর্ষনের অভিযোগে মেম্বার শাহীন বয়াতির ৭লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানা টাকা ভিকটিমকে না দিয়ে পুলিশ ও আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী শাম্মী আক্তারেরর জনসভায় আমন্ত্রিত অতিথিদের ভূড়িভোজের খরচ করার অজুহাত দেখিয়ে আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে কাজী সাখাওয়াত হোসেন রুবেল সহ কতিপয় শালিসগনের বিরুদ্ধে তবে অভিযুক্ত শালিসগন বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।
সরজমিনে গিয়ে জানাগেছে,গত বুধবার (১১ অক্টোবর ২ ০২৩)রাত পৌনে ১২টায় শ্রীপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডে র মেম্বার মোঃ শাহীন বয়াতি(৪০) তার বাড়ির পাশে  পঙ্গু সত্তার রাড়ীর পুত্র শারীরিক প্রতিবন্ধী গাফফার রাড়ীর স্ত্রী ছদ্মনাম তানিয়া (২৫) এর ঘরে প্রবেশ জোর পূর্বক পরনের সালোয়ার-কামিজ ছিঁড়ে ধর্ষণ করে।ভিকটিমের আত্মচিৎ কার শুনে গৃহবধূর ভাসুর-স্বামী সহ স্হানীয়রা উপস্থিত হয়ে হাতেনাতে আটক করে।
অতঃপর কাজী সাখাওয়াত হোসেন রুবেলের নেতৃত্বে কতিপয় শালিসগন বিচারের নামে প্রহসন করে ঘটনা ধামাচাপা দিতে ধর্ষক শাহীন বয়াতির ৭লাখ টাকা জরিমানা করেছে।জরিমানা আদায়ের পর ভিকটিমকে আটকিয়ে রেখে হুমকি প্রদর্শন করে বলেন,মামলা করলে পরিনতি ভালো হবে না।তোমার স্বামী সহ পরিবারের সবাইকে মেরে মাটিতে পুঁতে রাখবো।কেউ লাশ খুঁজে পাবে না।জরিমানার টাকা শালিসগন ভাগ-বন্টন করে নিয়েছে।
বিষয়টি ভিকটিম ভিডিও বার্তায় সাংবাদিকদের জানিয়েছে ন সাংবাদিকরা ভিকটিমের অভিযোগ পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করায় মেহেন্দিগঞ্জ থানার ওসিকে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন।পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।পুলিশ ঘটনাস্থলে যাওয়ার পর জরিমানার টাকা তুলে পুলিশ ও মিডিয়া ম্যানেজ করা সহ আওয়ামীলী গের মনোনয়ন প্রত্যাশী শাম্মীর জনসভায় আমন্ত্রিত অতিথিদের ভূড়িভোজের খরচ করার পরিকল্পনা করছে।
মোঃ গাফফার রাড়ী (ভিকটিমের স্বামী) সাংবাদিকদের বলেন, প্রতিনিয়ত আমার স্ত্রীকে বিরক্ত করে।আরও অনেকবার আমার বড় ভাই ফিরোজ রাড়ী শাহীন বয়াতিকে ধরলেও ছেড়ে দেন। বুধবার আমরা সবাই মিলে ধরেছি।এরপর নাজিম কাজীর ঘরে নেয়া হয়।বিএনপির সাবেক এমপি কাজী মেজবাউদ্দিন ফরহাদের চাচাতো ভাই কাজী সাখাওয়াত হোসেন রুবেলকে নাজিম উদ্দিন কাজী কল করে জানাইলে  রহিম জোমাদ্দার, হাসেম মোল্লা,সাদ্দাম সহ ৫/৭ জন‌কে পাঠিয়েছে।তারা বলেন, রুবেল মিয়া ফয়সালা করে দিবেন।পরেরদিন শাহীন মেম্বার পালিয়ে বরিশাল যায়।আমরা সাংবাদিকদের কাছে অভিযোগ দায়ের করলে ঘটনার ভিডিও ক্লিপ ভাইরাল হয়।এরপর শাহীন মেম্বার গ্রামে ফিরে আসেন।অতঃপর কাজী সাখাওয়াত হোসেন রুবেলের নেতৃত্বে স্হানীয়রা ফয়সালা করেছেন।জরিমানা আদায়ের কথা বলতে পারবো না।
এব্যাপারে মেম্বার শাহীন বয়াতি সাংবাদিকদের জানিয়েছে ন,এলাকায় বেশকয়েকটি চুরির ঘটনা ঘটেছে।এরআগে গাফফার রাড়ীর বউ একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে অনৈতিক কর্ম কাণ্ড করে ধরা পড়েছে।ওইদিন রাতে এক লোক মিটিমিটি লাইট জ্বালিয়ে গাফফার রাড়ী ঘরে প্রবেশ করে।আমি তাকে দেখে তার পিছনে ছুটে গাফফার রাড়ীর ঘরের সামনে যেতেই ফিরোজ রাড়ী আমাকে ঝাপটিয়ে ধরে, তারপর ৫/৭জন মিলে অমানুষিক নির্যাতন করে।চোর ধরতে গিয়ে নিজেই ফেঁসে গেলাম।রাজনৈতিক কারণে তাঁকে ফাঁসানো হয়েছে বলে দাবি করেছেন।
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক সংসদ সদস্য কাজী মেজবাউদ্দিন ফরহাদের চাচাতো ভাই সদ্য যোগদানকৃত (কৃষক লীগ নেতা)কাজী সাখাওয়াত হোসেন রুবেল বলেন, ভুল বোঝাবুঝির কারণে ঘটনাটি ঘটেছে। উভয়ের সঙ্গে আপোস-মিমাংসা করে দেয়া হয়েছে।জরিমানা আদায়ের অভিযোগ সত্য নয়।
শ্রীপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের এক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন,এরআগে শ্রীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে তুলে ধর্ষনের চেষ্টা করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি  আঃ মন্নান শেখ।একইভাবে এসব ব্যক্তিরা ঘটনা ধামাচাপা দেন।সেই ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দিলেও মামলা রুজু করা হয়নি।
এব্যাপারে মেহেন্দিগঞ্জ থানার ওসি শফিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান,অভিযোগ পাইনি,অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এবিষয়ে বরিশাল জেলার পুলিশ সুপার মোঃ ওহিদুল ইসলাম বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ পূর্বক অপরাধীদের আইনের আওতায় আনা হবে।
বরিশাল রেঞ্জের ডিআইজি মোঃ জামিল হাসান সাংবাদিকদের জানান,ভিকটিমের ভিডিও ফুটেজ এর অভিযোগ ভিত্তিতে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ধর্ষণ অভিযোগে ভিকটিমের ভিডিও ফুটেজ পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ঘটনা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করা হলে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মোঃ আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি- সাংবাদিকদের বলেন, অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর নৈতিক দায়িত্ব ও কর্তব্য।আইনের ব্যতয় ঘটলে তার বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Our Like Page