June 13, 2024, 1:16 pm
শিরোনামঃ
পুলিশ কমিশনারের সাথে ডিএমপির বিভিন্ন বিভাগের প্রধানদের এপিএ স্বাক্ষর এমপি আনার হত্যাকাণ্ড : ঝিনাইদহ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিন্টু গ্রেফতার প্রধানমন্ত্রীর উপহার সারাদেশে ১৮৫৬৬ টি ভূমিহীন – গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ হস্তান্তর নান্দাইলে আশ্রয়ন-২ প্রকল্পের গৃহ নির্মানে কোটি টাকার অনিয়মের অভিযোগ ময়মনসিংহ ডিবি কর্তৃক ৪টি আগ্নেয়াস্ত্রসহ দেশীয় ধারালো অস্ত্র উদ্ধার সেনা প্রধান হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান রাজারহাটে দেশের কন্ঠ পত্রিকার প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত রাস্তা দখলমুক্তে হকার উচ্ছেদকরনে মতিঝিল ট্রাফিকের জোরালো অভিযানঃ জেলা গোয়েন্দা শাখা ময়মনসিংহ সদস্যদের বিভিন্ন পারফরমে ন্সে পুরস্কার প্রদান ঈদ-উল-আযহা উদযাপন ও যানজট নিরসনকল্পে পরিবহণ মালিক,পেট্রোল পাম্প মালিকদের সাথে মতবিনিময় সভা
নোটিশঃ
আপনার আশেপাশের ঘটে যাওয়া খবর এবং আপনার ব্যবসার বিজ্ঞাপন প্রচারের জন্য যোগাযোগ করুন মানবাধিকার খবরে।

রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ভূমি অধিগ্রহণ ও অবকাঠামো নির্মাণ প্রক্রিয়া পেল ২৪০০ কোটি টাকা

Reporter Name

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (রামেবি) স্থাপন প্রকল্পের সংশোধিত ডিপিপি (ডেভলপমেন্ট প্রজেক্ট প্রোপোজাল) অনুমোদিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় ঢাকার শেরেবাংলা নগরস্থ এনইসি সম্মেলন কক্ষে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) ২০২৩-২০২৪ অর্থবছরের ৬ষ্ঠ সভায় রামেবির সংশোধিত ডিপিপি অনুমোদিত হয়। সংশোধিত ডিপিপিতে রামেবির ভূমি অধিগ্রহণ ও অবকাঠামে নির্মাণ খাতে ২ হাজার ৪০০ কোটি টাকা অনুমোদিত হয়েছে।

এদিকে, সংশোধিত ডিপিপি অনুমোদিত হওয়ায় রামেবি উপাচার্য ও প্রকল্প পরিচালক অধ্যাপক ডা. এজেডএম মোস্তাক হোসেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপার্সন শেখ হাসিনা, পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নান, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মোঃ তোফাজ্জল হোসেন মিঞা ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মোহাম্মদ সালাহ উদ্দিন, প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও রামেবির একাডেমিক কাউন্সিলের সদস্য অধ্যপাক ডা. এবিএম আব্দুল্লাহ্, আর্থ-সামাজিক অবকাঠামো বিভাগের সদস্য, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিবসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

রামেবি উপাচার্য অধ্যাপক ডা. এজেডএম মোস্তাক হোসেন বলেন, আমি উপাচার্যের দায়িত্ব নিয়েই একাডেমিক ও প্রশাসনিক কাজের পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের ডিপিপি তৈরিতে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়েছি। সংশোধিত ডিপিপি অনুমোদিত হওয়ায় ভূমি অধিগ্রহণ ও অবকাঠামো নির্মাণ প্রক্রিয়া আরও একধাপ এগিয়ে গেল। আশা করছি খুব শীঘ্রই সংশোধিত ডিপিপির টাকা পাওয়া যাবে। এরপর পর্যায়ক্রমে ভূমি অধিগ্রহণ ও অবকাঠামো নির্মাণ প্রক্রিয়া শুরু হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ১৪ জুন রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন প্রকল্পের ডিপিপি অনুমোদিত হয়। সে সময় ২০১৮ সালের রেট সিডিউল অনুযায়ী ডিপিপির প্রথম ধাপের ব্যয় ধরা হয় ১৮৬৭ কোটি টাকা। বরাদ্দকৃত অর্থ থেকে রাজশাহী জেলা প্রশাসকের ভূমি অধিগ্রহণ খাতে চলতি বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত ৫৮৪ কোটি বাইট্রান্সফার করা হয়েছে।

২০২২ সালের রেট সিডিউল অনুযায়ী প্রথম সংশোধিত ডিপিপির ব্যয় বেড়ে দাঁড়ায় ২৪০০ কোটি টাকা, যা গতকাল বৃহস্পতিবার একনেক সভায় অনুমোদিত হয়েছে। সংশোধিত ডিপিপির অর্থ ছাড় হলে ভূমি অধিগ্রহণ খাতের বকেয়া ১৭২ দশমিক ১৭ কোটি টাকা রাজশাহী জেলা প্রশাসকের সংশ্লিষ্ট খাতে ন্যস্ত করা হবে।

রাজশাহী মহানগরীর বড় বনগ্রাম এবং পবা উপজেলার বারইপাড়া ও বাজে সিলিন্দা মৌজার প্রায় ৬৮ একর জায়গায় রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় নির্মাণ করা হবে। রাজশাহী অঞ্চলের মানুষের স্বাস্থ্য সেবা প্রদানের লক্ষ্যে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকবে ১২০০ শয্যার একটি বিশেষায়িত হাসপাতাল। ১০টি চিকিৎসা অনুষদের অধীনে ৬৮টি বিষয়ে পোস্ট গ্র্যাজুয়েশন ডিগ্রি দেওয়া দেয়া হবে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে।

এছাড়া চিকিৎসা সেবার মানকে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে উন্নীতকরণের লক্ষ্যে গবেষণা কার্যক্রম চলবে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে। প্রথম ধাপে জমি অধিগ্রহণসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন, প্রশাসনিক ভবন, হাসপাতাল, নার্সিং কলেজ, স্কুল, ডে-কেয়ার সেন্টার, কেন্দ্রিয় লাইব্রেরি, ভিসির বাংলো, ডাক্তার ও নার্সিং হোস্টেল, মরচুয়ারি ভবনসহ গুরুত্বপূর্ণ ২১টি ভবন নির্মাণ করা হবে।

বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে রাজশাহী,রংপুর ও খুলনা বিভাগের সরকারি- বেসরকা রি ৭৭টি চিকিৎসা প্রতিষ্ঠানের এমবিবিএস,বিডিএস, ফিজিওথেরাপি ও ইউনানি মেডিসিন অ্যান্ড সার্জারি, বিএসসি নার্সিং এবং মেডিকেল টেকনোলজি কোর্সের শিক্ষা কার্যক্রম চলছে। এসব কোর্সের শিক্ষার্থী নিবন্ধন ,পরীক্ষার ফরম পূরণ,ফলাফল তৈরি সহ সব ধরণের ডাটা এন্ট্রি কার্যক্রম সম্পূর্ণ ডিজিটাল পদ্ধতিতে অনলাইনে সম্পন্ন করা হচ্ছে।

এছাড়া এ বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু থেকেই পরীক্ষার খাতা কোডিং-ডিকোডিং করে মূল্যায়ন করা হচ্ছে, যা বাংলাদেশে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার উদাহরণ সৃষ্টি করেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


Our Like Page